উপবৃত্তির ওয়েবসাইট ২০২৪ মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক (কলেজ)

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ প্রতিবছর লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন মেয়াদের উপবৃত্তি প্রদান করে এর পাশাপাশি দেশের বেশ কয়েকটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রয়েছে যারা শিক্ষার্থীদের মেধার উপর ভিত্তি করে উপবৃত্তি প্রদান করে থাকেন। আমাদের দেশে শিক্ষাক কার্যক্রম সঠিকভাবে পরিচালনা করার জন্য এবং মেধাবী দারিদ্র্য শিক্ষার্থীদের শিক্ষার দিকে মনোনিবেশ করার লক্ষ্যে সরকার সর্বদা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যার পরিপ্রেক্ষিতে উপবৃত্তির সুব্যবস্থা করা হয়।

উপবৃত্তির আবেদন থেকে শুরু করে বিজ্ঞপ্তি এবং ফলাফল সংক্রান্ত সকল ধরনের কার্যক্রম একটি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয় এবং এই ওয়েবসাইট সম্পর্কে প্রতিটি শিক্ষার্থীর ধারণা থাকা উচিত। আপনি যদি ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত মাধ্যমিক পর্যায়ের একজন শিক্ষার্থী হয়ে থাকেন তাহলে আপনি প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষের যে উপবৃত্তি ব্যবস্থা রয়েছে সেটি ব্যবহার করতে পারেন। তাছাড়াও বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রয়েছে যারা প্রতিবছর লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান করছে এবং আমরা আপনাদের সাথে আজকে বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইটের নাম উল্লেখ করবো যে সকল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন কার্যক্রম শুরু হয়।

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তার ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ উপবৃত্তি ওয়েবসাইট

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তার ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান এবং সরাসরি প্রধানমন্ত্রী যারা নিয়ন্ত্রিত একটি প্রতিষ্ঠান হওয়ার কারণে এখান থেকে প্রতিবছর ৪১ লক্ষের বেশি ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে শুরু করে অনার্স ও মাস্টার্স পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। মাধ্যমিক পর্যায়ে অর্থাৎ ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত ২০২৩২৪ অর্থবছরের প্রায় ৪৪ লক্ষ ৬১ হাজার শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি দেওয়ার কার্যক্রম নির্ধারণ করা হয়েছে এবং বর্তমানে তা ৫০ লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে।

এই অবস্থায় একজন আবেদনকারী হিসেবে আপনাকে অবশ্যই প্রতিনিয়ত সঠিক তথ্য সংগ্রহ করতে হবে এবং এই ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আপনাকে সঠিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করা জরুরী। একটি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটই পারে আপনাকে সঠিকভাবে উপবৃত্তি সকল তথ্যগুলো সংগ্রহ করে দিতে কেননা এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কবে প্রকাশ করবে এবং কবে থেকে অনলাইনে আবেদন শুরু হবে এবং শিক্ষার্থীরা কবে উপবৃত্তি তাদের একাউন্টে পাবে সে সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য।

Screenshot-2024-05-02-at-7-45-16-PM

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষের উপবৃত্তি কার্যক্রম তাদের যে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট রয়েছে www.pmeat.gov.bd এটার মাধ্যমে সম্পাদন করা হয় আপনারা চাইলে এখানে ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই উপবৃত্তি সংক্রান্ত নোটিশ এবং উপবৃত্তির ফলাফল সংক্রান্ত সকল ধরনের তথ্য জানতে পারবেন। তবে আপনারা যারা উপবৃত্তির নোটিশের পাশাপাশি উপবৃত্তির জন্য অনলাইনের আবেদন সম্পর্কে জানতে চান তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাইলে অন্যের আবেদন ও ফলাফল দেখার আমাদের একটু ওয়েবসাইট রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষের উপবৃত্তি সংক্রান্ত ওয়েবসাইটের পাশাপাশি অনলাইনে আবেদন কার্যক্রম পরিচালনা করা হয় stipend.pmeat.gov.bd এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। সুতরাং আপনাকে অবশ্যই এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে এবং এখানে সঠিকভাবে আপনার পিতা-মাতার ব্যক্তিগত তথ্য এর পাশাপাশি একাডেমির তথ্যগুলো ধারাবাহিকভাবে উপস্থাপন করুন। আপনার ব্যবহার করা তথ্যগুলো সঠিক হলে পরবর্তীতে কর্তৃপক্ষ আপনার সাথে যোগাযোগ করবে এবং আপনাকে যাচাই-বাছাইয়ের ভিত্তিতে আপনাকে উপবৃত্তির আওতায় আনা হবে।

তবে অনেক শিক্ষার্থী রয়েছেন যারা উপবৃত্তির যে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট রয়েছে সেটি সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানেন না তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে এই ওয়েবসাইট সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য আমরা আপনাদের সামনে ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করেছি। এর বাইরেও বেশ কয়েকটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান প্রতিবছর লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থীদের উপর ভিত্তিক উপবৃত্তি প্রদান করার চেষ্টা করে থাকে এবং এই উপবৃত্তি সংক্রান্ত নোটিশ তারা সাধারণত তাদের যে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট রয়েছে সেখানে প্রকাশ করে।

https://pesp.finance.gov.bd এটি হলো সরকারি উপবৃত্তি পাওয়ার একটি অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এবং এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি চাইলে এখন তথ্য সংগ্রহ করতে.

তবে সারা দেশের বেশিরভাগ শিক্ষার্থী তাই প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষের যে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট রয়েছে সেটা খুঁজে থাকে যা আমরা ইতিমধ্যে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করেছি। আমরা মনে করছি শিক্ষার্থীরা আমাদের এখান থেকে সঠিক লিংক ব্যবহার করে ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবে এবং তাদের যে সকল তথ্যগুলো জানার দরকার অথবা তারা যে সকল অনলাইনে কার্যক্রম পরিচালনা করবে সে সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানতে পারছেন।

Leave a comment